Saturday, May 23, 2015

Graphics Designer & Web Designer দের জন্য Color Code নির্ণয় করার জন্য দারুন একটি Software ?

সৃষ্টি কর্তার নিকট কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি যিনি আমাকে লেখার সুযোগ করে দিয়েছেন

যারা Graphics Design & Web Design এর কাজ করেন color নিয়ে তাদের একটু বেসি চিন্তা ভাবনা করা লাগে কারণ color হচ্ছে যে কোন design এর আত্মা .
এবার আমি একটা software এর সাথে পরিচয় করিয়ে দিব যা Graphics Designer & Web Designer দের color code নির্ধারণে সহযোগিতা করবে .
design এর জন্য আমরা বিভিন্ন color এর code মুখস্ত অথবা note করে রাখি  যা অনেক সময় বিরক্তির কারণ হয়ে দাড়ায় . এবার আসুন software টি সম্পর্কে জেনে নেই .

প্রথমে এখান থেকে মাত্র কয়েক KB এর software টি নামিয়ে নিন

অতপর চিত্রের অনুরূপ file টি এক্সট্র্যাক্ট করে নিন
অতপর নিচের চিত্রের অনুরূপ file টি open করুন
অতপর নিচের চিত্রের অনুরূপ Run  এ ক্লিক করুন
অতপর যে color টি use করবেন সেই color এর উপরে আপনার cursor টি রাখুন দেকবেন software তির ভিতরে code গুলো শো করবে অতপর আপনি আপনার কাঙ্খিত জায়গায় ওদে টি বসিয়ে সহজে ক্লোর নির্ধারণ করুন .
আজ এ পর্যন্তই ভুল হলে ক্ষমা করবেন অন্য লোনদিন আবার দেখা হবে .সুভো কামনা

টিউন করেছেন :  | প্রকাশিত হয়েছে : www.techtunes.com.bd

আসুন বাংলাদেশী কয়েন তৈরী করি ইলাষ্ট্রেটরে, যে কেউ পারবেন।

প্রিয় টেকটিউনস বন্ধুগন আসসালামু-আলাইকুম।আমার গ্রাফিক্স ডিজাইন আনেক ভালোলাগে। তার চেয়েও ভালোলাগে আমি যা পারি তা অন্যকে শেখাতে।উপরের হেডলাইন দেখেই বোঝাযাচ্ছে যে আজকে কি হতে যাচ্ছে। তবে ভয়ের কারন নাই এটা কোন জাল টাকা নয় ১০০% আসল, সৎ এবং সহজ উপায়। তো দেখি কেমন হবে কয়েনটি।


এটা আপনি আয়ত্ত করতে পারলে শুধু কয়েন তৈরী না বিভিন্ন লোগো তৈরীতেও আপনাকে সাহায্য করবে। ফিচারড় ইমেজেই দেখতে পাচ্ছেন যে কয়েন টি দেখতে কেমন হবে। যদি আপনার ভালো লাগে তাহলে দেখতে পারেন ভিডিওটি।
আর দেখে জানাবেন আপনার অনুভুতি। আশা করি আমার ভুলগুলো ক্ষমার চোখে দেখবেন।
টিউন করেছেন :  | প্রকাশিত হয়েছে : http://www.techtunes.com.bd/

Adobe Lightroom এর জন্যে বিয়ের ফটোগ্রাফিতে ব্যবহার করতে পারেন এমন ১৪০টি Presets. মাত্র 40KB এখনি Download করে নাও। আর Preset কিভাবে add করতে হয় শিখে নাও।

Adobe Lightroom এর জন্যে বিয়ের ফটোগ্রাফিতে ব্যবহার করতে পারেন এমন ১৪০টি Presets. মাত্র 40KB এখনি Download করে নাও। আর Preset কিভাবে add করতে হয় শিখে নাও এখনি।  আপনার কাজের সহযোগিতায় এটা আপনার কাজ করবে অনেক দ্রুত  তরো। Presets কিভাবে Install করতে হয় তার একটা ভিডিও নিচে দেওয়া হলো।
এই লিংকে যেয়ে দেখে নাও কিভাবে এটা করতে হয় ?

Download করতে এখানে Click করো...


Password :- aminislam

Password টি RAR File খোলার জন্যে প্রয়োজন হবে তাই অবশ্যই যত্ন করে রেখো।
আর আশাকরি খুব সহজে সবাই বুঝতে পেরেছো।  কোন কিছু না বুঝলে আমার সাথে যোগাযোগ করো।
এটা আমার বেক্তিগত ফেসবুক পেজ সাথে থাকলে অনেক খুশী হবো ধন্যবাদ বন্ধুরা :- https://www.facebook.com/AminIslamFilmMaker

টিউন করেছেন :  | প্রকাশিত হয়েছে : http://www.techtunes.com.bd/

ফটোশপ – ছবিতে গ্লো এফেক্ট দিন

সবাই কেমন আছেন ? আশা করি ভালো আমিও অনেক ভালো আছি আল্লাহর রহমতে।  আজকে আমরা  দেখবো যে কিভাবে একটা ছবিতে glow এফেক্ট দেওয়া যায়। আসুন তাইলে দেখা যাক ছবিতে এমন একটি এফেক্ট কিভাবে দেওয়া যায়।
তাহলে শুরু করা যাক
প্রথমে ছবিটাকে ফটোশপে ওপেন করুন নিন। তারপর ctrl+j চেপে ছবির একটা duplicateলেয়ার তৈরি করুন যাতে  আমরা দেখতে পারি যে আমাদের original image কেমন ছিলো আর এফেক্ট দেওয়ার পরে আমাদের ইমেজ কেমন হইছে।

এবার আমাদের layer 1 যে লেয়ারটি আছে সেই লেয়ার টিকে smart filter এ পরিণত করতে হবে। এখন কথা হলো যে smart filter কি জিনিস ? এইটা বুঝার সব চাইতে বুঝার উপায় হইলো ধরেন আপনার একটি লেয়ার আছে। আপনি ২০% ব্লার দিলেন আপনার লেয়ারে। তারপর আরও অনেক এফেক্ট দিয়ে আপনি যখন ছবিটা বানানো মুটামুটি শেষ করে ফেলছেন তখন আপনার মনে হলো যে আপনার ব্লার দেওয়া ইমেজে ব্লারটা একটু বেশি লাগতেছে। কিন্তু তখন আর আপনার এই ব্লার বদলানোর কোনো অপশন থাকে না। কিন্তু আপনি যদি কোনো একটা লেয়ার কে smart filter হিসাবে ব্যাবহার করেন তাইলে আপনার যখন ইচ্ছা তখন ঐ লেয়ারের যেকোনো এফেক্ট বদলাতে পারবেন। আরও ভালো বুঝতে হলে আপনাদের অবশ্যই বাদ বাকি টিউটরিয়াল দেখতে হবে। যাই হোক,
আপনাদের লেয়ারটিকে smart object এ পরিণত করতে Menu>filter>convert into smart object অথবা right click on the layer>convert to smart object দিলেও চলবে।
এখন একটা warning বক্স শো করবে আপনারা অবশ্যই এতে ok ক্লিক করবেন এবং চাইলে don’t show again টিক দিতে পারেন যাতে পরবর্তীতে এই ওয়ার্নিং না আসে।
এখন ভাববেন যে কি করলাম এইটা কিছুইতো হইলো না ইমেজে :P আসলে হইছে কিন্তু আপনারা খেয়াল করেননি হয়তো। আপনাদের লেয়ার পেলেট এর দিকে খেয়াল করুন দেখবেন যে আপনার লেয়ারে একটি ছোট thumbnail আসছে। এর মানে হচ্ছে যে আমাদের লেয়ারটি এখন smart object এ আছে।

এখন আমরা লেয়ারে একটু ব্লার এফেক্ট দিবো। ব্লার এফেক্ট দিয়ে Menu>filters>blur>motion blur ক্লিক করুন। এবার motion bar এর dialogue box এ নিচের ছবি অনুযায়ী সেটিং দিন।

Angle – এই অপশনটি আপনার এই যে লম্বা লম্বা লাইন গুলা দেখতেছেন তা কোন দিক দিয়ে যাবে তা বদলানো হয় এইখানে। আপনারা চাইলে ১২০ অথবা ১৮০ ডিগ্রি দিয়ে দেখতে পারেন যে আপনাদের ছবি তে কি হয়।
distance – আপনার ছবি কোতো টুকু ব্লার করতে চান তা এইখানে বদলানো যায়। ১ – সব চাইতে কম ব্লার আর ২০০০ – সব চাইতে বেশি ব্লার।
এবার ok ক্লিক করুন দেখবেন যে আপনার ছবি নিচের ছবির মতো দেখাবে।
ছবি দেইখা মনে হইতেছে কেউ ছবিটারে তেল দিয়ে ঘসতে ঘসতে এই অবস্থা কইরা ফেলছে। কিন্তু একটু পরেই আমরা দেখবো যে এইটা কিভাবে ম্যাজিক এর মতো কাজ করে :D

এবার আপনার ব্লার দেওয়া লেয়ারটির blend mode normal থেকে hard light দিন। তারপর দেখবেন আপনার ছবিতে already অন্য রকম একটা এফেক্ট চলে আসছে।
এবার দেখুন আপনার ছবি নিচের ছবির মতো দেখাচ্ছে কিনা!
hard light ব্লেন্ড মোডটি খালি আপনার লেয়ারই ব্লেন্ড করে না বরং আপনার ছবিতে এক ধরনের contrast তৈরি করে।
আরেকটি জিনিস লক্ষ করুন যে আপনার লেয়ার এর উপর smart filter_motion blur নামে কিছু একটা দেখতে পাচ্ছেন। এইটা কিন্তু আপনার লেয়ারটকে smart না করলে এই অপশনটি পেতেন না। motion ব্লার এর উপরে ক্লিক করলেই দেখতে পারবেন যে আবার সেই dialogue বক্স টি আসছে যেইখানে angle and distance বদলানো যায়।
এবার আপনাদের লেয়ার ১ এর আরেকটা কপি তৈরি করুন ctrl+j দিয়ে। নিচের ছবিতে দেখতেই পাচ্ছেন যে ctrl+j ক্লিক করার পর নতুন একটি লেয়ার কপি হইছে।
এবার আমাদের নতুন লেয়ার এর motion blur এর কিছু অপশন আমরা change করবো। তার করতে লেয়ার ১ কপি এর motion blur লেখাটির উপর ডাবল ক্লিক করুন।
তারপর নিচের ছবি অনুযায়ী সেটিংস করুন

এবার দেখুন আপনার ছবি নিচের ছবির মতো হয়েছে কিনা। আপনারা নিশ্চয় বুঝতে পারছেন যে এইখানে কি করা হয়ছে। আমরা angle টাকে বদলে দেওয়ায় আমাদের ছবির বাম দিক থেকে আলাদা একটা এফেক্ট তৈরি হয়েছে। । নিচের ছবি দেখুন,
লেয়ার  কপি নামের লেয়ারটির আরেকটা লেয়ার কপি করুন ctrl + j দিয়ে। এবার আমাদের লেয়ার পেলেট নিচের ছবির মতো দেখাবে,

আবারো আমরা motion blur এ লেখাটির উপর ডাবল ক্লিক  করে আমাদের সেটিংস বদলে নেই।
নিচের ছবি দেখে দেখে সেটিংস বদলান।
এবার দেখুন যে ৩ বার আমাদের ব্লার অপশন বদলানোর পর আমাদ্র ছবি দেখতে কিরকম দেখাচ্ছে,
এটি হচ্ছে আমাদের ফাইনাল স্টেপ । প্রথমে আপনার সব গুলা লেয়ার সিলেক্ট করুন এবং একটি গ্রুপ তৈরি করুন। একের অধিক লেয়ার সিলেক্ট করতেshift ক্লিক করুরে শুদু background ছাড়া  বাকি সবগুলু লেয়ার এক সাতে করুন
এবার ctrl + G চাপুন। এটি আপনার সব গুলা লেয়ার একটু গ্রুপে রাখবে যাতে আপনার বুঝতে সুবিধা হয় অথবা একটি লেয়ার অন্য লেয়ার এর সাথে মিশে না যায়। এটি যদিও এই লেয়ার গুলার ক্ষেত্রে খুব একটা প্রযোজ্য না কারণ এইখানে খুব একটা বেশি লেয়ার নাই যে একটা আরেকটার সাথে মিক্স হয়ে যাবে। কিন্তু gradient effect দিতে হলে আমাদের গ্রুপ করাটা জরুরী।
নিজে ইচ্ছা মতো group 1 লেখাটির উপরে ডাবল ক্লিক করে আপনার গ্রুপ এর একটি নাম দিয়ে দিবেন যাতে বুঝতে পারেন যে কি আছে এই গ্রুপ এর মধ্যে। এবার আমরা আমাদের গ্রুপে একটি লেয়ার মাস্ক অ্যাড করবো। লেয়ার মাস্ক কিভাবে অ্যাড করবেন তা নিচের ছবিতে লক্ষ করুন।
যদিও আমরা মাস্কটিকে আমাদের ডকুমেন্টে দেখতে পাচ্ছি কি না কিন্তু আমরা জানি যে আমাদের গ্রুপে একটি লেয়ার মাস্ক অ্যাড করা হয়েছে কারণ লেয়ার মাস্ক গ্রুপ লেয়ার এর সাথেই অ্যাড হয়।
এবার tools pallet থেকে gradient tool সিলেক্ট করুন।
এবার দেখেবন যে উপরে কিছু অপশন আছে তা নিচের ছবি দেখে দেখে বদলে নিন।
এবার দেখুন আপনার লেয়ার এর মাস্ক সিলেক্ট করা আছে নাকি। মাস্ক সিলেক্ট করা না থাকলে সিলেক্ট করে নিন তারপর নিচের ছবির মতো করে আপনার gradient cursor ছবির মাঝখান থেকে উপরে ডানে কোণার দিকে  নিন।
এখন যদি আমরা মাস্ক এর দিকে খেয়াল করি দেখবেন যে আমাদের লেয়ারেটিতে একটি radial gradient তৈরি হয়েছে।
এবং এরই মধ্যে দিয়ে শেষ হয়ে গেলো আমাদের কাজ। নিচের ছবি হচ্ছে আমাদের ফাইনাল ইমেজ। আশা করি আপনাদের অনেক অনেক ভালো লেগেছে। আপনাদের কোনো কমেন্ট অথবা প্রবলেম হলে আমাকে অবশ্যই জানাবেন আমি ট্রায় করবো আপনাদের যত তারাতারি পারি রিপ্লায় দেয়ার :)
facebook আমি 

আজ এই পর্যন্ত আল্লাহ হাফেজ

টিউন করেছেন :  | প্রকাশিত হয়েছে : http://www.techtunes.com.bd/

ফটোশপ – খুব সহজে ছবির রং পরিবর্তন করুণ

আসসালামু আলাইকুম। কেমন আছেন সবাই? আশা করি ভালোই আছেন। আমিও আপনাদের দোয়ায় আল্লাহর রহমতে ভালো আছি।
আজকে আমরা দেখব কিভাবে একটি ইমেজ এর কোন একটা স্পেসিফিক কালার কে বদলানো যায়।
প্রথমে ছবিটাকে ফটোশপে ওপেন করুন নিন। তারপর ctrl+j চেপে ছবির একটা

তারপর Image > Adjustments > Replace Color এ যান।
Add to Sample Tool সিলেক্ট করে বিভিন্ন লাল জায়গার উপরে ক্লিক করতে থাকুন যাতে সব ধরনের লাল সিলেক্ট হয় এবং fuzziness টা বাড়িয়ে দিন । Fuzziness যত বাড়াবেন আপনার সিলেক্ট করা স্যাম্পল এর সিমিলার যত কালার আছে তা আস্তে আস্তে সিলেক্ট করতে থাকবে। fuzziness কমালে সিলেকশন ও কমে আসবে।
যখন সিলেক্ট করা শেষ হয়ে যাবে তখন Hue টাকে বারিয়ে কমিয়ে আপনার পচ্ছন্দ মত যেকোনো একটু কালার দিন। নিচের ছবি দেখে দেখে আপনি আপনার সেটিংস্‌ change করতে পারেন।
এখন দেখুন আপনার ইমেজ নিচের ইমেজ এর মত দেখাচ্ছে কিনা।
এই কালার গুলিকে আরও অনেক ভাবে change করা যায়। আপনাদের যদি অন্য কোন way জানা থাকে তাহলে এই অপশন ব্যাবহার করতে হবে না। কিন্তু আমার মতে এটি মুটামুটি ভালই একটি অপশন। যাই হক আশা করি  আপনারা এ  টিউন থেকে কিছু একটা শিখতে পেরেছেন। আজকের টিউন এই পর্যন্তই ! ধন্যবাদ সবাইকে।
facebook আমি 
টিউন করেছেন :  | প্রকাশিত হয়েছে : http://www.techtunes.com.bd/

ফটোশপ – খুব সহজে ইটের ওয়াল তৈরি করুণ

আসসালামু আলাইকুম। কেমন আছেন সবাই? আশা করি ভালোই আছেন। আমিও আপনাদের দোয়ায় আল্লাহর রহমতে ভালো আছি।
আজকের টিউটরিয়ালে আমরা দেখব যে কিভবে একটি ইটের ওয়াল তৈরি করা যায়। নিচের ছবিতে দেখুন ইটের ওয়াল বলে আমি কি বুঝাতে চাচ্ছি। আসুন দেখি আমরা কিভাবে অনেক সহজে ইটের ওয়াল তৈরি  করা যায়।

আপনাদের ইচ্ছামত যেকোনো সাইজ এর একটি ফটোশপ ডকুমেন্ট ওপেন করুন আমি এইখানে Width: ১০Height: ৮ Inches Resolution: 72ব্যাবহার করবো।  তারপর নতুন একটু লেয়ার ওপেন করুন এবং background ব্যাবহার করে আপনার ক্যানভাস এ #e85200 কালার দিন।
এখন Filter>Filter Gallery যান...

এবার  Texture> Texturizer এ যান এবং ড্রপ ডাওন মেনু থেকে Brick সিলেক্ট করুন তারপর নিচের দেখানো ছবি অনুযায়ী সেটিংস্‌ বদলান। (এ এফেক্টটা ২ ভার দিবেন )
এখন আপনার ইমেজ নিচের ছবির মতো দেখাচ্ছে কিনা দেখুন।
ওয়াল বানানো শেষ কিন্তু ছবিটি দেখতে কেমন জানি অনেক বরিং লাগতেছে এবং মনে হইতেছে ছবির কোন প্রান নেই। তাই আসুন আমরা ছবিটির একটু প্রান ফিরিয়ে আনি হাল্কা  এফেক্ট দিয়ে।   লেয়ার প্যানেলের  রাইট ব্যাটনে ক্লিক করে Blending Options  ক্লিক করুন। তারপর নিচের ছবি অনুযায়ী সেটিংস্‌ বদলান।
এবার দেখুন আপনার ছবি নিচের ছবির মতো কিছুটা প্রান ফিরে পেয়েছে কিনা !!!
আজকে আমাদের টিউন  এই খানেই সমাপ্তি । আশা করি আপনাদের ভালো লেগেছে।
facebook আমি 

টিউন করেছেন :  | প্রকাশিত হয়েছে: http://www.techtunes.com.bd/

কিভাবে আমরা ফটোশপ দিয়ে সুন্দর একটি ওয়ালপেপার তৈরী করতে পারি।

আমরা বিভিন্ন রকম পিকচার ইন্টারনেট থেকে ডাউনলোড করি বা অন্যের পিকচার ব্যবহার করি। কিন্তু আমরা যদি গ্রাফিক্স এ professional কাজ করতে যায় তাহলে এ সব পিকচার দিয়ে কাজ করতে পারবো না। কারণ আমরা এ সব পিকচার দিয়ে কোন প্রোজেক্ট করতে গেলে দেখা যাবে, যে এই পিকচার তৈরী করেছে সে আমার/ আপনার নামে মামলা করতে পারে। আর আমরা যদি নিজেই এ ধরণের   সুন্দর পিকচার তৈরী করতে পারি তবে কেমন হয়!
তো চলুন আর কথা না বাড়িয়ে শুরু করা যাক।
তো প্রথমে আমরা ফটোশপ ওপেন করি। এখন প্রথমে আমরা একটি নতুন ব্রাশ তৈরী করবো। তাহলে এখন আমরা নতুন একটি ডকুমেন্ট খুলি Height: 217, Width: 217 এবং রেজুলেশন: 72 আর Background: Transparent, Then ok.
এখন আপনি rectangular marquee tool টি select করুন। তারপর foreground color এ ক্লিক করে সম্পূর্ণ কাল রঙ select করুন। এখন shift চেপে ধরে একটি shape তৈরী করুন। এখন paint bucket tool দিয়ে fill করে দিন।
এরপর আপনি Layer menu তে click করুন তারপর layer style + blending options এ ক্লিক করুন। এখন দেখুন যেখানে fill opacity লিখা আছে সেখানে ৫০% করে stroke এ click করুন এখন size:7 and position: inside করে ok করুন।
এখন edit menu থেকে Define brush এ ক্লিক করুন এবং যে কোন নাম দিয়ে ok করে দিন।
এখন নতুন একটি পেজ খুলুন। height:768, width:1024, Resolution:72 and background: white then ok.
এখন foreground color কাল রেখে paint bucket tool এর সাহায্যে fill করে দিন। এখন নতুন একটি layer নিই। তারপর ব্রাশ এ ক্লিক করে ব্রাশ সাইজ ৩০০ করুন। এখন কয়েক ধরণের রঙ দিয়ে পিকচার টি রাঙিয়ে তুলন। layer menu থেকে opacity ৫৬% করে দিন।
আবার একটি নতুন layer নিন। তারপর window menu তে গিয়ে ব্রাশ এ ক্লিক করুন। তারপর একেবারে নিচের দিকে দেখন যে ব্রাশটি তৈরী করে ছিলেন তা আছে। এখন brush tip shape এ ক্লিক করুন এবং spacing: 113 করে দিন। তারপর shape dynamic এ ক্লিক করুন এবং size jitter: 100 আর minimum diameter: 20 করে দিন। এখন scattering এ ক্লিক করুন তারপর scatter: 900 এবং count: 3 করে দিন। এখন color dynamic এ ক্লিক করুন তারপর foreground: 13 ও hue jitter: 13 করে দিন। তারপর smoothing এ টিক চিহ্ন দিয়ে বাহির হয়ে আসুন।
এখন একটি নতুন লেয়ার নিয়ে ব্রাশ সাইজ ৮০ করে বিভিন্ন রঙ দিয়ে রাঙিয়ে তুলন। তারপর লেয়ার মেনু থেকে opacity: 50% করে দিন। আবার একটি নতুন লেয়ার নিয়ে ব্রাশ সাইজ ৯৫ করে একই ভাবে রাঙিয়ে তুলন। এবার opacity 70% করে দিন। আবার একটি লেয়ার নিয়ে ব্রাশ সাইজ 113 করে একই ভাবে রাঙিয়ে দিন। এখন একটি নতুন লেয়ার নিয়ে rectangular marquee tool সিলেক্ট করে Feather: 30px করে একটি shape তৈরী করী এবং লেয়ার মেনু থেকে এর mood টি normal থেকে soft light করে দিই। আবার একটি লেয়ার নিয়ে rectangle tool টি select করি এবং foreground color: white করে একটি shape তৈরী করি। এখন এর mood টি আবার soft light করে দিই। এখন layer + layer style + inner glow + gradient: white + size: 20 করে ok করুন।

এখন হয়ে গেল আপনার তৈরী করা মনের মত wallpaper.
এই টিউনটি প্রথমে এই সাইট এ ইংরেজীতে প্রকাশিত হয়েছে। Tutorial Website